মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১; ৩:১২ অপরাহ্ণ


– মাসুদ আলম

পবিত্র কোরআনে ৯৫ নম্বর সূরা ত্বীন এ আল্লাহ্‌ ডুমুর ফল, জাইতুন ফল মিশরের সীনাই প্রান্তরের তূর পাহাড় এবং নিরাপদ নগরী মক্কার কসম খেয়েছেন অর্থাৎ বিষয় গুলোর প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন।

আমি আজকে পাঠককে সেই জাইতুন ফলের সাথে পরিচয় করিয়ে দিব, যা কুরআনের একাধীক সূরায় স্পস্টভাবে আল্লাহ এই ফলের নাম ঘোষণা করেছেন।
জাইতুন এর বাংলা হল জলপাই এবং ইংরেজিতে বলা হয় Olive আর এর তেলকে ই বলা হয় Olive Oil.

জাইতুন শক্ত কান্ড বিশিষ্ট দীর্ঘজীবি গাছ, ফিলিস্তিনে ৩০০ বছরের ও বেশি বয়সী গাছ দেখতে পাওয়া যায়। তবে ইউএই তে আমি ১০০ বছর বয়সী গাছ দেখেছি।
পাতা দেখতে ছোট আকারের লিচু পাতার মতো যা ২- ৩ ইঞ্চির মতো লম্বা হয়। পাতার উপর হালকা সাদা পাউডারের মতো আস্তরন থাকায় দেখতে গাড় সবুজ দেখায় না এবং পাতায় কোন গন্ধ নেই।

ফল ছোট আকারের বড়ুই বা জলপাইয়ের মতো যা গড়ে ২.৫ সেন্টিমিটার লম্বা হয়। সবুজ, কালো এবং মিশ্র রংয়ের জায়তুন দেখাযায়। পাতার ফাঁকে একেক থোকায় ৩/৪ টি করে ধরে।

কাঁচা ও পাকা উভয় ধরণের ফলের স্বাদ (তিতো+কষটে+টক) এক সাথে অনুভূত হয়! তাই একে লবণ পানিতে কয়েকদিন ডুবিয়ে রেখে পরে সালাদে বা খালি খাওয়া যায়।

আরব আমিরাতের সকল সালাদের স্টল গুলোতে নানান জাতের, নানান রেসিপির জায়তুন সারা বছর পাওয়া যায়। এটি আরবদের প্রতিদিনের খাবারের অবিচ্ছেদ্য উপাদান!

মিশর, ফিলিস্তিন, সিরিয়া, তুর্কি, লেবানন, গ্রীস,ইরান, ইতালি, স্পেন এ দেশ গুলোতে উৎকৃষ্টমানের জায়তুন বাণিজ্যিক ভাবে চাষ করা হয়। অর্থাৎ ভূমধ্যসাগরের তীরবর্তী দেশগুলোতে সবচেয়ে ভালো জায়তুন উৎপাদিত হয়। এছাড়া আরবাঞ্চাল, আমেরিকা অষ্ট্রেলিয়া সহ অনেক দেশে জায়তুন উৎপন্ন হয়। অর্থনৈতিক মূল্যমান থেকে জাইতুন তেল কে “তরল সোনা” বা Liquid Gold নামে ডাকা হয়।

ফিলিস্তিনের জাইতুন তেল ( Olive Oil) কে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ তেল হিসেবে বিবেচনা করা হয়।
সারা বিশ্বের ধর্নাঢ্য ব্যক্তিরা ফিলিস্তিনের জাইতুন তেলের রান্না খেতে পছন্দ করেন। (কারণ তাদের টাকা আছে!)
বারাক ওবামা প্রথম বার প্রেসিডেন্ট হওয়ার সময় সারা বিশ্ব থেকে তার জন্য দামী দামী উপহার আসতে থাকে। তখন ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট পাঠিয়েছিলেন দুই লিটার জাইতুন তেল! এবং বোতলের গায়ে লেখা ছিল Product of Palestine.

চার হাজার বছর পূর্ব থেকেই মানুষ জায়তুনের তেল ব্যবহার করে আসছে এবং আধুনিক বিজ্ঞান প্রমাণ করেছে যে, খাঁটি জাইতুন তেল ক্ষতিকর কোলেস্টেরল (LDL) মুক্ত, অধিক পুষ্টি সমৃদ্ধ এবং জীবাণুনাশক হিসেবেও কাজ করে।

বিভিন্ন বর্ণনায় পাওয়া যায় রাসূল সঃ জাইতুন তেল শরীরে মাখতেন এবং খাবারে ব্যবহার করতেন। (ইবনে মাজাহ্)

বর্তমানে সকল পাঁচ তারকা ও সাত তারকা হোটেলে জাইতুন তেলের ব্যবহার চোখে পড়বেই।

আমি অধিকাংশ আরবদের বাড়ীর সামনে দেখেছি দুএকটি জায়তুন গাছ সযত্নে লাগানো আছে। এছাড়াও রাস্তার পাশে শোভা বর্ধনের জন্য লাগানো হয়েছে।
এটি ভুল ধারণা যে- ” জাইতুন গাছের ডাল দ্বারা মেস্ওয়াক তৈরি হয়”। আমরা যে গুলোকে জায়তুনের ডাল বলে কিনে নিয়ে আসি সেগুলে আসলে অন্য এক জাতের গাছের শিকড়, সে বিষয়ে আরেক দিন বলবো।

ওহ্ বলে রাখি Virgin মানে কিন্তু খাঁটি বা কুমারী আর Extra Virgin Olive Oil মানে হল- তাজা জায়তুন ফল ভাঙ্গানোর সময় প্রথম বারে যে তেল বের হয়ে আসে সেটা!!
গাছ থেকে তুলে আনা জায়তুন গুলোকে পাথরের ঘানিতে বীজ সহ পিষে তারপর সেই মন্ড কাপরের ভাঁজে মুড়িয়ে অনেক গুলোকে এক সাথে যান্ত্রিক চাপ দেওয়া হলে তেল গড়িয়ে পড়তে থাকে। এটাই এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল!

২৯.১০.২০১৯
ইউএই

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন