মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১; ৮:২৬ অপরাহ্ণ


Photo: Gofran

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে উদ্বেগজনক পরিস্থিতি থেকে উত্তরণ ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছেন শিক্ষকগণ। রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত ও মর্যাদা রক্ষার দাবিতে সচেতন শিক্ষকবৃন্দের ব্যানারে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তারা এই দাবি জানান।

শিক্ষকগণ বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে শিক্ষার্থীদের উপর হামলা নির্যাতন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। গভীর রাতে সুফিয়া কামাল হল থেকে শিক্ষার্থীদের বের করে দেয়া হয়েছে।   এটা বাংলাদেশের প্রচলিত মূল্যবোধের লঙ্ঘন।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া সাংবাদিক ও গবেষক সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, ব্যক্তি পর্যায়ে নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটতে দেখছি, কিন্তু প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে নারী নির্যাতনের ঘটনা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এই প্রথম হলো। যা আমাদের জন্য লজ্জাজনক। এটা যেন দ্বিতীয়বার না ঘটে প্রশাসনকে তা নিশ্চিত করতে হবে।

আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল বলেন, ছাত্রছাত্রীদের প্রতি যদি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিন্দুমাত্র মায়া থাকে,তবে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা উচিৎ যারা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বিনা অনুমতিতে , বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের বুকে গুলি চালিয়েছে।

অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এম এম আকাশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরব পুনরুদ্ধারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে দুটি পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেন। প্রথমত, ডাকসু নির্বাচন দিতে হবে এবং দ্বিতীয়ত হলগুলোতে দলনিরপেক্ষ দায়িত্বশীল প্রশাসক নিয়োগ করতে হবে।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস বলেন, ন্যায্যতার প্রশ্নে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়  কখনো ছাড় দেয়নি, দেবে না। সচেতন শিক্ষকেরা শিক্ষার্থীদের পাশে আছেন জানিয়ে তাঁদের বুক ফুলিয়ে চলা জন্য বলেন।

শিক্ষকগণদের দাবির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল- বিশ্ববিদ্যালয় সব ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষার পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে নয়, সুনির্দিষ্টভাবে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে। ভিসির বাসভবনে হামলার সঙ্গে যারা জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। শিক্ষক শিক্ষার্থীদের মর্যাদা সমুন্নত রাখতে হবে। তাদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষা করতে হবে।

রিপোর্টঃ মিথিলা রায়

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন