বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন ২০২১; ৮:৪৯ অপরাহ্ণ


মোবাইল ফোন কেন বিস্ফোরিত হয় তা বলার আগে একটু কথা বলে নিতে হবে, সংক্ষেপে ও সহজ কথায় বলছি- মোবাইল এর পাওয়ার সাপ্লাই হয়ে থাকে রিচার্জেবল ব্যাটারী থেকে এবং বর্তমানে অধিকাংশ ভালো মানের মোবাইল ব্যাটারি তৈরি হয় লিথিয়াম -আয়ন (Li-ion) প্রযুক্তিতে।

মানে হল ব্যাটারির এক পাশে +Ve কারেন্ট বা কেথোড সংগ্রাহক হিসেবে থাকে এ্যালুমিনিয়াম এবং অন্য পাশে -Ve কারেন্ট বা এনোড সংগ্রাহক হিসেবে থাকে কপার। আর মাঝখানে লিথিয়াম ব্যবহার করা হয় দুইটি প্রান্তকে আলাদা রাখার জন্য। আর এর দুই পাশেই তৈরী হয় লিথিয়াম আয়ন এবং +Ve/-Ve চার্জধারী ইলেকট্রন।

এবার আসি মূল কথায়- একটি মোবাইলে বিস্ফোরিত হওয়ার মতো একটাই জিনিস থাকে সেটা হলো এই ব্যাটারি। যেটা বিস্ফোরণের কতোগুলো সাম্ভাব্য কারণ হতে পারে তা হলো-

১) মোবাইল জোড়ে আছাড় খেলে বা মোবাইল দিয়ে কিছুকে জোড়ে আঘাত করলে।

২) মোবাইল (ব্যাটারি) অতিরিক্ত গরম হলে

৩) মোবাইলের নিজস্ব চার্জার ব্যতিত অন্য গুলো দিয়ে চার্জ করলে। (একই ব্রান্ডের ও একই ভোল্টেজ রেটিংয়ের হলে ব্যবহার করা যেতে পারে)

৪) মোবাইল সব সময় ১০০% চার্জ করতে থাকলে

৫) আসল ব্যাটারি বদলিয়ে নিম্নমানের ব্যাটারি ব্যবহার করলে।

এখানে যে পাঁচটি কারণ বলা হয়েছে এর সব গুলোই সাম্ভাব্য কারণ।

এবার ১নং এর বিস্তারিত -ঐ যে বলেছিলাম ব্যাটারির মাঝখানে সেপারেটর হিসেবে থাকে লিথিয়াম! জি, যদি আপনার মোবাইল টি খুব জোড়ে আছাড় খায় তাহলে মাঝখানের এই পার্টিশনটি ভেঙ্গে যেতে পারে বা দূর্বল হয়ে যেতে পারে (এটাকে বলে মাইক্রোস্কোপিক শর্ট সার্কিট)। এটা খালি চোখে দেখা সম্ভব না (বহুদিনের প্রেম একদিনে ভেঙ্গে যাওয়ার মতো, ভেঙ্গে গেছে বুঝবেন কিন্তু দেখাতে পারবেন না)। ফলে ব্যাটারির ইন্টার্নাল শর্ট সার্কিট হয়ে বিস্ফোরণ হতে পারে! এটা ঘটতে অনেক দিন সময় লাগতে পারে।

অথবা দূর্বল পার্টিশনের কারণে আয়ন গুলোর চার্জ ঘনত্বের কারণেও বিস্ফোরণ হতে পারে।

মোবাইল কখনো মাত্রাতিরিক্ত গরম হতে দেওয়া যাবেনা। এর ফলে ব্যাটারি “থার্মাল রানওয়ে” তে যেতে পারে। মানে হলো, যদি ব্যাটারির ভিতরের কোন অংশ অন্য অংশের তুলনায় ঠান্ডা হতে বেশি সময় নেয় তাহলে সে অংশ তুলনামূলক গরম হতেই থাকবে। ফলে এক সময় বিস্ফোরণ ঘটতে পারে। তাই মোবাইল কখনো বিছানা বালিশের উপর/নিচে রেখে চার্জ করবেন না এবং গরম কিছুর উপর বা রৌদ্রময় স্থানে রেখে চার্জে করবেন না।

কিছু ভুল কথাঃ

777888999 নম্বর থেকে বা আজগুবি কোন নম্বর থেকে ফোন রিসিভ করলে মোবাইল কখনো বিস্ফারিত হবেনা। মনে রাখবেন, মোবাইল কোন বোমা নয় যে সুইচ চাপলেই ফেটে যাবে। কন্ট্রোল বোমা বা যে কোন বিস্ফোরকে থাকে ডেটোনেটর -এটা ছাড়া বোমা তৈরি সম্ভব না কেননা একটি বিস্ফোরক/ বোমার ভিতরে সার্কিট কমপ্লিট হলেই বোমা ফাটতে পারে।

কোন মোবাইল ফোন ব্যাটারিতে ডেটোনেটর ব্যবহার সম্ভব না তাই এটাতে নিয়ন্ত্রিত বিস্ফোরণ ঘটানোও সম্ভব না।
কিছু অজ্ঞ সংবাদমাধ্যম এসব প্রচার করে, এসব বিশ্বাস করার কোন দরকার নেই।

মোবাইল বিস্ফোরণের যেসব ছবি বা খবর দেখা যায় তার সবগুলোই উক্ত পাঁচটি কারণের আওতাধীন, কেননা বিস্ফোরণের আগের ঘটনা গুলো কি কখনো বলা হয়? হয়না।

তবে কয়েকটি বিশ্বখ্যাত কোম্পানির তৈরি কিছু মডেলের মোবাইল ফোন চালু অবস্থায় বিমান টেক অফ করার সময় ফ্রিকোয়েন্সী ইন্টারফেয়ারেন্স এর কারণে দ্রুত গরম হয়ে বিস্ফোরণের প্রমাণ পাওয়া গেছে। সবশেষে ফলাফল ঐ পাঁচটি কারণ!!

মাসুদ আলম
টেলিকমিউনিকেশন প্রকৌশলী, ইউএই

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন