, ১ আগস্ট ২০২১; ১১:৪২ অপরাহ্ণ


অলিম্পাসঃ আলেকজান্ডার দ্য গ্রেটের জননী

আলেকজান্ডার দ্য গ্রেট হচ্ছে পৃথিবীর ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সেরা যোদ্ধা আর বিজয়ী, যার বিজয়গাঁথা পৃথিবীর ইতিহাসে লেখা হয়েছে, আলোচনা হয়েছে এবং এখনও পঠিত হচ্ছে কিন্ত যখন আমরা তার কথা আলোচনা করি তখন প্রায় সময়ই একটি নাম বাদ পরে যায় তার নাম হচ্ছে অলিম্পাস সম্রাট আলেকজান্ডারের মা । যার সাহায্য ছাড়া আলেকজান্ডারের পক্ষে এতো বড় সামাজ্য তৈরি করা কখনোই সম্ভব হতো না।

অলিম্পাসের আসল নাম হচ্ছে মাটের্ল । মাটের্ল হচ্ছে রাজা প্রথম নেপোলেমুটেসের কন্যা। নেপোলেমিটেস প্রাচীন গ্রীক গোএ ইফিরাসের অধিবাসী ছিলেন এবং তিনি ইফিরাসের রাজা ছিলেন। অলিম্পাসের ভাই প্রথম আলোকজান্দার ৩৫০- ৩৩১ BC পযন্ত শাসন করেন।। অলিম্পাসের পরিবার সব সময় দাবি করতো যে তারা পুরানে বর্নিত রাজা আকু্য়্যাস এর বংশধর এবং  তারা এমনকি এটাও দাবি করতো তারা বীরদের বীর আক্যালিস ট্রোজান যুদ্ধের অন্যতম নায়ক তার সাথেও অলিম্পাসের যোগসূত্র রয়েছে এবং অলিম্পাস আক্যালিসেরও বংশধর।

অলিম্পাসসের বাবা  ৩৬০ BC তে মারা যান। অলিম্পাসের পিতা মারা যাবার পর  রাজা আরিবাস রাজা হোন। আরিবাস সিংহাসনে আরোহনের পর মেসিডোনিয়ার রাজা দ্বিতীয় ফিলিপের  সাথে সন্ধি করেন । আর এই সন্ধির ফলে আরিবাস অলিম্পাসকে বিয়ে দেন দ্বিতীয়  ফিলিপের সাথে  ৩৫৭ BC তে । বিবাহের পরপরই ফিলিপ ঘোড়া দৌড় জিতে অলিম্পিকে এবং এরপর থেকেই অলিম্পক থেকে তার নাম হয় অলিম্পাস। সেই বছর অলিম্পাস তার প্রথম সন্তান আলেকজান্ডারের জম্ম দেন। ৩৫১ BC তে তাদের দ্বিতীয় সন্তান ক্লিওপ্রেটা সিসিরোতে  জম্মগ্রহন করে। (উল্লেখ্য এই ক্লিওপ্লেটা মিশরের রানী নয় )

রাজা ফিলিপের সাথে অলিম্পাসের বিয়ে এক সময় ভেঙ্গে যায় কারন রাজা ফিলিপ অলিম্পাস কে সাপের সাথে শায়িত দেখতে পায়৷ফিলিপ যখন দেখতে পায় অলিম্পাস কে সাপের সাথে শায়িত অবস্থায় ঠিক সেই সময়ে সে অলিম্পাসের সাথে বৈবাহিক সম্পর্ক ছিন্ন করে । অলিম্পাস ডায়োনিসিস কার্লটের একনিষ্ঠ ভক্ত ছিল। গ্রীক পুরানে ডায়োনিসিস হচ্ছে জিউসের ও সিমিলের পুএ ৷

অলিম্পাস যে অনেকদিন ধরেই কাল্টের একনিষ্ঠ ভক্ত ছিলো ধারনা করা হয় তার সাপের সাথে সঙ্গম একটি প্রথা যা সাধারনত কাল্টের অনুসারীরা পালন করে থাকে৷

ফিলিপের সাথে বিচ্ছেদের পর রানী অলিম্পাস তার জীবনের একমাত্র মিশন করে নিলো যে করেই  হোক আলেকজান্ডার কে রাজা বানাতে হবে তাই সে আলেকজান্ডার কে বারবার আক্যালিসের সাথে আলেকজান্ডারের যোগসূত্র মনে করিয়ে দিতে থাকতো এবং এটা বলা যায় আলেকজান্ডারের উপর আক্যালিসের একটা শক্তিশালী প্রভাব ছিলো৷ আলেকজান্ডার সব সময় এমনকি শোয়ার সময়েও ইলিয়াড নিয়ে ঘুমাতো ৷অলিম্পাস এছাড়াও বরাবর সচেষ্ট ছিলো আলেকজান্ডার যাতে সুশিক্ষা পায় আর তার জন্য সে আলেকজান্ডার কে মহান দুই শিক্ষাগুরু লিওনাডাস এবং এরিস্টটলের কাছে নিয়ে যায় ৷

আলেকজান্ডার যেহেতু হাফ মেসোডিয়ান ছিলো তাই তার উপর চাপ ছিলো সে যেন পুরোপুরি মেসোডিয়ান এমন কাউকে বিয়ে করে এবং অনেকের মতে ফিলিপের এমন কাউকে বিয়ে করা দরকার ছিলো যে হচ্ছে ফিলিপের নিজের রক্তের যার উপর বিশ্বাস স্থাপন করা যায় ৷কারন অলিম্পাস কে সাপের সাথে শায়িত অবস্থায় দেখার পর ফিলিপ অবিশ্বাস করতে শুরু করেছিলো যে আলেকজান্ডার তাদের সন্তান ৷ অলিম্পাসের জন্য আরেকটি যে ভয়াবহ ব্যাপার ছিলো সেটা হলো মেসিডোনিয়ার সাথে কূটনৈতিক সম্পর্ক বন্ধ হয়ে যাওয়া ৷

অলিম্পাস এবং আলেকজান্ডার ইউফিরাস থেকে ফিরে আসার সময় আলেকজান্ডারের তার বাবা রাজা ফিলিপসের সাথে তর্ক হয় এবং এই তর্ক বাদুনুবাদে চলে যায় ৷অনেক ঐতিহাসিক মনে করেন অলিম্পাস তার ভাই কে ইচ্ছে করেই খেপিয়ে দেন ফিলিপের বিরুদ্ধে যেন ফিলিপের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নেওয়া যায় ৷তবে রাজা ফিলিপ খুব ভালোভাবেই পরিস্থিতি সামাল দেন এবং আলেকজান্ডার আর অলিম্পাস কে মেসিডোনিয়াতে ফিরে আসতে অনুমতি দেন৷

33 BC  তে রাজা ফিলিপ নিহিত হোন ৷অনেকের মতে ফিলিপের মৃত্যুতে  অলিম্পাসের হাত রয়েছে ৷আলেকজান্ডার যখন এশিয়া মাইনর বিজয়ের জন্য পা বাড়াচ্ছিলো তখন অলিম্পাস বলেছিলো যে দেবতাদের দেবতা জিউস হলো আলেকজান্ডারের আসল পিতা আর তাই আলেকজান্ডার যেন সাহসের সাথে যুদ্ধ করে কারন দেবতাদের পুএকে কে হারাতে পারবে !

আলেকজান্ডার তার মাকে আর কখনো দেখতে পাইনি৷ ৷আলেকজান্ডার 323 Bc তে মারা যান আর অলিম্পাস চাচ্ছিলেন যে আলেকজান্ডারের পর তার পুত্র রাজা হোক


আর তারই পরিপ্রেক্ষিতে অলিম্পাস রাজা এসিডাসের সাথে যুদ্ধে যোগদান করে আর তাদের সাথে ছিলো ইঊফ্রোটিসের রাজা৷ অলিম্পাস এদের সবাইকে নিয়ে মেসিডোনিয়া আক্রমণ করতে যায় যেখানে অলিম্পাস রাজা ফিলিপের সৎ ভাই আর তার স্ত্রী কে হত্যা করেন যারা ক্যাসাণ্ডারের অনুসারী ছিলো ৷ক্যাসাণ্ডার যে তৎকালীন মেসিডোনিয়া শাসন করে আসছিলো সে রাজা আলেকজান্ডারের খুব প্রিয় ছিলো ৷ আলেকজান্ডারের ক্যাসাণ্ডার কে বিশ্বাস করতো এবং অলিম্পাসও তাকে বিশ্বাস করেছিলো আর অলিম্পাস মনে করেছিলো ক্যাসাণ্ডার

আলেকজান্ডারের পুএকে সিংহাসন আরোহনে সাহায্য করবে ৷ অলিম্পাস যুদ্বে হেরে যায় এবং ক্যাসাণ্ডার দ্বারা বন্দী হয় ৷ক্যাসাণ্ডার এক সময় শপথ করেছিলো যে সে অলিম্পাস কে খুন করবে না ৷আলেকজান্ডার দ্যা গ্রেট মারা যাবার পর ৩২৩ BC আলেকজান্ডার দ্যা গ্রেটের স্ত্রী রোক্সানা এক পুএ সন্তানের জস্ম দেন যার নামও রাখা হয় আলেকজান্ডার আর রানী অলিম্পাস এই আলেকজান্ডার চার কেই রাজা বানাতে চেয়েছিলেন ৷

প্রথমে কথা ছিলো ক্যাসাণ্ডার অলিম্পাস কে হত্যা করবে না এবং রোক্সানা এবং শিশু আলেকজান্ডার কে ছেড়ে দিবে কিন্ত পরে তারা কথা রাখেনি ৩১০ BC এই দুজনকে হত্যা করা হয়  রোক্সানা এবং আলেকজান্ডার দ্যা গ্রেট এর পুএ আলেকজান্ডার ৪ কে ৷ দুর্গ পিডনার যখন পতন ঘটে তখন আদেশ আসলো যে অলিম্পাস কে হত্যা করার জন্য কিন্ত যুদ্ধে নিয়োজিত সৈন্যরা রাজি হলো না রাজা আলেকজান্ডারের মা’কে হত্যা করতে ৷ অবশেষে যুদ্ধে নিহত হওয়া অথবা আহত হওয়া পরিবারের মানুষ জন পাথর ছুড়ে ছুড়ে রানী অলিম্পাস কে হত্যা করেছিলো আর এভাবেই এক মহান নারীর জীবনের অবসান হয় ৷মৃত্যুর পরও রানী অলিম্পাস অন্তিম সৎকার পান নি তাকে অন্তিম সৎকার দিতে বাধা আসলে তার দেহের আর সৎকার হয় নি !

ঐতিহাসিক দের মতে অলিম্পাস ছিলো অহংকারী, স্থিতবুদ্ধি সম্পূর্ণ একজন নারী ৷অবশ্যই নিঃসন্দেহে তিনি ছিলেন একজন যে আলেকজান্ডার দ্যা গ্রেটের রাজা এবং দ্বিগবিজয়ী হয়ে ওঠার পিছনে গূরত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করেছেন৷ প্রফেসর ডোনাল্ড ওয়াসনের মতে আলেকজান্ডার দ্যা গ্রেট তার মায়ের কাছ থেকে নতুন কিছু শেখার ইচ্ছা এবং চরিএে এক ধরনের হিংস্রতা  আয়ত্ত করেছিলেন এছাড়াও আরেকটি ব্যাপার আয়ত্ত করেছিলেন বুনো রক্তের প্রতি আদিমতা(the thirst of blood !)

Olympias: Mother of Alexander the Great (UK & US) by Elizabeth Carney অবলম্বনে।

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন