বৃহস্পতিবার, ১৬ জুন ২০২১; ৫:১৮ অপরাহ্ণ


কোনো পূর্বঘোষণা ছাড়াই হুট করে আফগানিস্তান সফর করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আনুষ্ঠানিক কোনো কাজ না থাকলেও সেখানে মোতায়েন মার্কিন সেনাদের সাথে খোশ মেজাজে কিছুটা সময় কাটিয়ে আবার নিজ দেশে ফিরে গেছেন তিনি। তবে যাওয়ার আগে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গানির সাথে দেখা করেছেন ট্রাম্প। জানিয়েছেন, তালেবানদের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের আলোচনা এখনো চলছে। শিগগিরই উপযুক্ত সমাধান মিলবে বলে আশাবাদী তিনি।

বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বরে) যুক্তরাষ্ট্রে উদযাপিত হয়েছে ‘থ্যাংকসগিভিং ডে’। এদিন মূলত সেনাদের ধন্যবাদ জানাতেই হঠাৎ আফগানিস্তানে উপস্থিত হন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাগ্রাম সেনাঘাঁটিতে পৌঁছান ট্রাম্প। সেখানে সেনা সদস্যদের সাথে থ্যাংকসগিভিং ডিনার করে আবার মধ্যরাতেই যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে রওয়ানা হন তিনি। তালেবানদের সাথে শান্তি আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার উদ্দেশে বন্দি বিনিময়ের কিছুদিন পরেই আফগানিস্তান সফর করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সফরকালে দেশটি থেকে স্থায়ীভাবে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের কথাও জানিয়েছেন তিনি।

২০১৬ সাল থেকে বন্দি মার্কিন নাগরিক কেভিন কিং ও অস্ট্রেলিয়ার টিমোথি উইকসকে গত সপ্তাহে মুক্তি দিয়েছে তালেবানরা। বিনিময়ে আটক তিন সিনিয়র সেনা কর্মকর্তাকে ফিরিয়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। ট্রাম্প বলেন, আমরা তাদের (তালেবান) সাথে দেখা করছি আর বলছি, একটা অস্ত্রবিরতি দিতে হবে। তারা এটা করতে চাচ্ছিল না। কিন্তু এখন তারা অস্ত্রবিরতি চায়। আমার বিশ্বাস, এতে এবার কাজ হবে।

যদিও ট্রাম্পের কথা মতো এ শান্তি আলোচনা কতটা সফল হচ্ছে তা এখনো নিশ্চিত নয়। শান্তি চুক্তির বিষয়ে তালেবানদের সদিচ্ছা নিয়েও আগে থেকেই প্রশ্ন রয়েছে।

ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাতের পর তালেবানদের সঙ্গে আলোচনার বিষয়ে সরাসরি কিছু না জানিয়ে আফগান প্রেসিডেন্ট বলেন, দুই পক্ষই সম্মত হয়েছি যে, তালেবানরা যদি সত্যিই শান্তি চুক্তি চায়, তাদের অবশ্যই অস্ত্রবিরতিতে রাজি হতে হবে।

তবে, এ বিষয়ে এখনো আনুষ্ঠানিক কোনো মন্তব্য করেনি তালেবান।

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন