, ২০ জুন ২০২১; ৪:০০ অপরাহ্ণ


স্বাধীনতা তুমি করেছো মহান, হয়েছি ঋণী আর ঋণের বোঝা এখন আকাশচুম্বী, হে বিধাতা এই সম্পূরক লোন/ধার-উদ্ধার এর সুদটুকু ফেরত দেবার ক্ষমতা যেন স্বয়ং দেশবাসী অর্জনক্ষম হয়। পরাধীনতার গ্লানি আর ঋণে জর্জরিত জাতি দুইই ভয়ানক, মহামারি-দূর্ভিক্ষের আগাম জানান দেয়। মেজরিটি ডুয়েল হলে জাতিতে ত্রিশ কোটি লোকের বাস, তাদের বেসিক প্রয়োজন পর্যাপ্ত পরিমানে কতৃপক্ষ হিমশিম, উন্নয়ন মূলক কাজ অন্যের নির্ভর (দাতাগোষ্ঠীর) ইচ্ছা-অনিচ্ছা (চড়া সুদ ও শর্তস্বাপেক্ষে)।

ব্যপারটা অনেক গড়িয়েছে ও অনান্য গরীব দেশের চাহিদা ও গুরূত্ব কম না। ১৯৭১ থেকে ২০১৯ অনেক বছর গড়িয়েছে (সামনেই ৫০ বছর)। যোগ-বিয়োগ-গুন-ভাগ শূন্যই যার ফলাফল। আরো একই পরিক্রমায় আগালে নাম সর্বস্ব অঞ্চলভিত্তিক, প্রদেশ, ভ্যেনু, হাটবাজার ও জনগনই (নাগরিক) হবে হাসির খোরাক, বিদ্রুপের পাত্র আত্মহননের দিকে ধাবিত করে। সেটা একটি স্বাধীন – সার্বভৌম রাষ্টের জন্য গভীর সাগরে নিমজ্জিত হয়ে হাবুডাবু আর নাকে করড়া দিয়ে ঘুরিয়ে বেড়ানো! যা জাতির জন্য লজ্জাস্কর ও র্দূভাগ্য।

আসুন সবাই মিলে ঘুরে দাড়াই এবং দেশ গঠনে সম্মলিত প্রয়াস রাখি। দেশ (স্বাধীন) শুধু মানুষে ভরপুর নাহয়ে সৃজনশীল, মেধা, মনন, দক্ষ-হাত, কারিগড়, ডাক্তার-কবিরাজ ও প্রকৌশলী ও কৃষিবিদ – সম্বনয়ে একটি সুখি-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ যার রাষ্ট্রভাষা বাংলা এই প্রত্যয় নিয়ে স্বাবলম্বী, স্বনির্ভর, সুখী-সমৃদ্ধ, প্রগতিশীল দেশের আশাবাদ রাখী ও সম্মূখের দিকে দিক নির্দেশনা দিতে আজ্ঞাবহ হই সবাইকে মিলে – যেন আগামীর প্রজন্ম হারিয়ে বা বিলীন হয়ে না যায় অতল গভীর সমুদ্রগর্ভে। Long Live Bangladesh with dignity & prosperities.Bring human a source of power & energies!

আনিসুর রহমান : শিক্ষক, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, আইউবিএটি

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন