, ১ আগস্ট ২০২১; ১০:০২ অপরাহ্ণ


ভারতে নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার থেকে উত্তর প্রদেশের বহু অংশে ব্যাপকহারে সহিংসতা ছড়িয়েছে। এখনও পর্যন্ত পাওয়া খবরে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে বিক্ষোভের নানা ঘটনায়, তাদের বেশিরভাগই গুলিতে মারা গিয়েছেন।

তবে রাজ্য পুলিশ নিজেদের বক্তব্য অনড়, তাদের দাবি পুলিশ কোথাও বিক্ষোভকারীদের উপর একটিও গুলি চালায়নি। যদিও কানপুরে পুলিশ এবং বিক্ষোভকারীদের মধ্যে গতকাল সংঘর্ষ চলাকালীনই এই দাবির ঠিক উল্টো প্রমাণই পাওয়া গিয়েছে।

বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে দেশটির উত্তরপ্রদেশে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষের ঠিক একদিন পরেই এমন একটি ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে যাতে কানপুরের এক পুলিশকর্মীকে তার রিভলবার দিয়ে গুলি চালাতে দেখা যাচ্ছে স্পষ্ট।

তবে এই ভিডিওটি প্রকাশ্যে আসার পরেও উত্তরপ্রদেশ পুলিশ জানিয়েছে যে বিক্ষোভের কারণে রাজ্যে মৃতদের কেউই পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারায়নি।

কানপুর উত্তরপ্রদেশের সেই শহরগুলির মধ্যে অন্যতম যেখানে শনিবার নতুন করে সহিংসতা ছড়ায়। বিক্ষোভকারীরা একটি পুলিশ পোস্টে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এই ভিডিওতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে একজন পুলিশকর্মীকে, পরণে একটি সুরক্ষা জ্যাকেট এবং একটি হেলমেট। সংঘর্ষের জায়গায় হাতে একটি রিভলবার এবং লাঠি নিয়ে হাঁটতে দেখা যাচ্ছে তাকে। তাকে এক কোণে হেঁটে গিয়ে গুলি চালাতেও দেখা যায়।

পুলিশের গুলিতে কারো মৃত্যু হয়েছে তা বারেবারে অস্বীকার করে উত্তরপ্রদেশের পুলিশ প্রধান ওপি সিং শনিবার বলেছিলেন, “আমরা একটি গুলিও চালাইনি।”

অপর এক কর্মকর্তা অভিযোগ করেন যে বিক্ষোভকারীরাই আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করছিল। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ আরও জানিয়েছে, আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহারের ফলে ৫৭ জন পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার থেকে মোট ২৬৩ জন পুলিশ কর্মী নানা ঘটনায় আহত হয়েছেন।

উত্তর প্রদেশ পুলিশের মহাপরিচালক (আইনশৃঙ্খলা) প্রবীণ কুমার বলেন, “উত্তরপ্রদেশ জুড়ে ৪০০ টিরও বেশি খালি কার্তুজ উদ্ধার হয়েছে, এতেই প্রমাণিত যে বিক্ষোভকারীরা দেশি বন্দুক থেকেই গুলি চালাচ্ছিল।” এনডিভি।

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন