বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১; ৫:১১ অপরাহ্ণ


শশী থারুর, ছবিঃ সংগৃহীত

ভারতের কংগ্রেস দলীয় এমপি ও লেখক শশী থারুরের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। নারী অবমাননার মামলার শুনানিতে হাজির না হওয়ায় কেরালার রাজধানী থিরুভানান্থাপুরামের একটি আদালত শনিবার তাঁর বিরুদ্ধে এ পরোয়ানা জারি করেন। এনডিটিভির অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এ দিকে শশী থারুরের কার্যালয় জানিয়েছে, আদালতের সমনে কেবল তাঁর হাজির হওয়ার সময়ের কথা উল্লেখ আছে, তারিখ ছিল না। তাই তারা এ পরোয়ানার বিরুদ্ধে আপিল করবে।

৩০ বছর আগে শশী থারুরের লেখা ‘দ্য গ্রেট ইন্ডিয়ান নোভেল’ শিরোনামের উপন্যাসের একটি অধ্যায়ে ‘নায়ার’ নারীদের অবমাননা করা হয়েছে বলে বাদী অভিযোগ করেন। শনিবার ছিল এই মামলার প্রথম শুনানি।

শশী থারুরের কার্যালয় আরও বলে, ‘আমাদের আইনজীবী ইতিমধ্যে আদালতের নজরে এনেছেন যে (সমনে) তারিখ উল্লেখ নেই। বিষয়টি স্বীকার করে আদালত বলেছিলেন, তারিখসহ নতুন করে সমন জারি করবেন। এ ক্ষেত্রে মনে হয় কোনো বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। আজ ছিল শুনানির প্রথম দিন। কিন্তু আমরা কোনো সমন পাইনি। আমরা এই পরোয়ানার বিরুদ্ধে থিরুভানান্থাপুরামের সিজেএমের (চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট) কাছে আপিল করব।’

শশী থারুরের লেখা ব্যঙ্গাত্মক উপন্যাস ‘দ্য গ্রেট ইন্ডিয়ান নোভেল’ প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯৮৯ সালে। এটিতে ভারতের মহাকাব্য ‘মহাভারতে’র কাহিনির সঙ্গে ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলন ও এর পরের ৩০ বছরের ঘটনা কাল্পনিকভাবে তুলে ধরা হয়েছে।

শশী থারুর পেশাদার কূটনীতিক ছিলেন। পরে তিনি রাজনীতিতে আসেন। লেখক হিসেবেও তিনি সফল। তাঁর কয়েকটি বই প্রচুর বিক্রি (বেস্ট-সেলিং) হয়েছে। ২০১৮ সালে শশী থারুরের নন-ফিকশন ‘হোয়াই আই অ্যাম আ হিন্দু’ ও ‘দ্য প্যারাডক্সিক্যাল প্রাইম মিনিস্টার’ প্রকাশিত হয়। এ বছর শশী থারুরসহ ২৩ লেখক ভারতের সম্মানজনক সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কার পেয়েছেন।

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন