শনিবার, ২ জানুয়ারি ২০২১; ১২:০৩ পূর্বাহ্ণ


সময় এসেছে আধুনিকতা এবং জীবন নিয়ে নতুনভাবে চিন্তা করার। বিংশ শতাব্দীর শেষের দিক থেকে একবিংশ শতাব্দীর এই সময়টিকে বলা হয় প্রযুক্তিগত উৎকর্ষের শ্রেষ্ঠ সময়।

কি তৈরী করেনি মানুষ ! আধুনিক সার্ভেইল্যান্স সিস্টেম থেকে শুরু করে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এর মাধ্যমে মানুষের মস্তিষ্ক নিয়ন্ত্রণের কাজটি পর্যন্ত করা হচ্ছে।

মানুষের জীবনাচরণ যেমন তার পছন্দের পোশাক কি হওয়া উচিত, তার খাবার মেন্যুতে কি কি থাকলে আধুনিক হওয়া যাবে, তার কথা বার্তার জার্গনগুলো কি হওয়া উচিত – এ সবই সচেতন কিংবা অবচেতন ভাবে নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে প্রযুক্তির দ্বারা। পৃথিবীর সুপার পাওয়ার গুলো এখন এই ধরণী ছাড়াও অন্য গ্রহে স্পেস স্টেশন তৈরী করেছে সম্পদের ভাগবন্টনের জন্য।

কদিন আগেও পৃথিবীর মানুষজন যেখানে ব্যস্ত ছিল তাদের মিটিং সিডিউল করা, বন্ধুদের এবং পরিবারের সাথে ঘুরে বেড়ানোর প্ল্যান করা, ভালোবাসার মানুষটির সাথে সময় কাটানো, কারো ক্যারিয়ার নিয়ে চিন্তা, এসব সহ আরো কত শত প্ল্যান। এখন সেখানে মানুষ চিন্তা করছে ভীড় এড়িয়ে কিভাবে নিরাপদ থাকা যায়।

একটি ভাইরাস নিমিষেই এই ব্যস্ত পৃথিবীর পুরো চিত্র বদলে দিয়েছে আর চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে এই বৈশ্বিক ব্যবস্থা কতটা ভঙ্গুর। পৃথিবীর সব ব্যাস্ততম শহর আজ খা খা করছে। ধনীরা চলে যাচ্ছে নির্জন কোনো গ্রামে কিংবা কোনো বিচ্ছিন্ন দ্বীপে আর গরীব মানুষরা এখনো বুঝে উঠতে পারেনি আসলে কি হচ্ছে।

তৃতীয় বিশ্বের অধিকাংশ মানুষ আপাতত একটি ভরসাতেই আছে – শেষ বেলা হয়তো সৃষ্টিকর্তা কিছু একটা করবেন। ডাক্তার এবং নার্সরা দিন-রাত সময় কাটাচ্ছেন রোগীদেরকে সারিয়ে তুলতে, বিজ্ঞানীরা ব্যস্ত ভ্যাকসিন তৈরী নিয়ে, আর সাধারণ মানুষ চিন্তা করছে কি করবে বাসায় বসে এই সময়টাতে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প থেকে চীনের সি জিনপিং কিংবা ইরানের আয়াতুল্লাহ খোমেনী সবাই একে অন্যের বিরুদ্ধে বিষেদাগার করার পরিবর্তে তারা এখন বার বার লাইভ এ এসে কিভাবে কোয়ারেন্টাইন -এ থাকতে হবে সে সম্পর্কিত নির্দেশনা দিচ্ছেন।

ট্রাম্প সাহেব এতদিনে বুঝতে পেরেছেন মক্সিকো সীমান্তে ওয়াল তৈরী করে আর যাই হোক ভাইরাস ঠেকানো যাবেনা। আমেরিকা প্রবাসী বন্ধুরা জানালো মার্কেট এ নাকি কিছু পাওয়া যাচ্ছেনা। এ এক অদ্ভুত চিত্র। কোনো সন্দেহ নেই যে সারা পৃথিবীব্যাপী একটা বড় আকারের অর্থনৈতিক মন্দা আমাদের সামনে অপেক্ষমান।

কিভাবে বিশ্বের নেতৃবৃন্দ সেটি ট্যাকল দেন সেটাই নির্ধারণ করে দিবে আগামী দিনের বৈশ্বিক পথচলা।

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন