, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১; ৯:২১ অপরাহ্ণ


সারা জীবন, আমেরিকান সাম্রাজ্যবাদের সমালোচনা করেছি কিন্তু, ধরে নিয়েছি যে, ইউরোপ অনেক মানবিক। জার্মানি ২০১৬ সালে প্রায় ১০ লক্ষ সিরিয়ান রিফিউজিকে গ্রহণ করেছে যা আমি মনে করি, এঞ্জেলা মার্কেল ও জার্মানির অনন্যসাধারণ মানবিক আচরণ। এদের দেশে থাকি, এদের ভালো খারাপ সব কিছুই দেখেছি।

কিন্তু, ইজরায়েলের প্যালেস্টাইনে হামলা শুরুর পর থেকে দেখতে পাচ্ছি, লাউ আর কদুর মধ্যে পার্থক্য অল্পই। জার্মান শেখার জন্যে আমি জার্মানির নিউজ গুলো দেখার চেষ্টা করি। এই রিপোর্ট গুলোতে, বিশেষত মেইন্সট্রিম সো কল্ড নিরপেক্ষে নিউজেই দেখতে পাচ্ছি কি সফিসিটিকেটেড ভাবে ইজ্রায়ালি বয়ানকে, প্রতিষ্ঠিত করা হচ্ছে।

যেমন , হামাসের রকেট হামলার পরে ইজরায়েলি পরিবারের সাক্ষাতকার নেওয়া হয়। বাচ্চাদের খেলার ছবি দেওয়া হয়। কিন্তু, ইজরায়েলি রকেট হামলার ছবিটা দেখানো হয় দূর থেকে , একটা বিল্ডিং ধ্বসে গেলো। তার হিউম্যান ফেস টা দেখানো হয় না।রকেটের স্প্লিন্টারের আঘাতে মৃত বাচ্চাদের ছবি গুলো দেওয়া হয় না।

তিন চারদিন আগে, বারলিন সহ বিভিন্ন শহরে প্যালেসেটাইনিদের স্বপক্ষে বিক্ষোভ মিছিল হলো। তারপর থেকে নিউজ পেপারে আলোচনা শুরু হয়েছে, আরব এবং মুসলমানদের এন্টিসেমিটিজম নিয়ে। প্যালেস্টাইন আমাকে একটা জিনিষ শিখিয়েছে। লিবারেলিজম একটা ফার্স। প্রাসচাত্যের দেশ গুলো তাদের অসীম সম্পদের সুযোগে, যে মানবতা মানবিকতার চর্চা করে সেইটা একটা ভণ্ডামি। একটা নগরকে অবরুদ্ধ করে, সেই নগরের মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা আশ্রয় সব কিছুকে সরাসরি নিয়ন্ত্রণ করে , ছোট ছোট বাচ্চাদের ট্যাঙ্কে দিয়ে গুলি করে মেরে, তাকে তার ঘর থেকে বহিষ্কার করে, শরণার্থী শিবিরে ঠেলে দিয়ে একটি আপারথিড স্টেট তৈরি করে মানুষের জীবন জীবিকাকে নিশ্চিহ্ন করতে করতে যখন নাগরিকেরা প্রতিবাদী হয়ে উঠে।

ইজরায়েল সেই প্রতিবাদকে, বুলেট দিয়ে, মিজাইল দিয়ে, বুলডোজার দিয়ে দমন করে। হত্যা করে নিরীহ শিশুদের। সেইটাকে প্রাসচাত্য সার্টিফিকেট দেয়, ইজরায়েলের সেলফ ডিফেন্সের অধিকার বলে। এই পশ্চিমারা প্রতি বছর, মানবাধিকারের রিপোর্ট বের করে সার্টিফিকেট দেয়, কে মানবিক কে মানবিক না।

প্যালসেটাইন যত দিন মুক্ত হবেনা, বিশ্বের নিপীড়িত মানুষের মুক্তি হবেনা, এই প্রাসচাত্য যত দিন ইজরায়েলই ওয়ার ক্রিমিনালদের বিচার করবেনা, তাদের পশ্চাৎ লেহন করবে – তত দিন আমি জানবো এই লিবারেলিজম একটা ফার্স। এইটা প্রাসাত্যের ক্ষমতা, নিয়ন্ত্রণ এবং প্রাধান্য বিস্তারের একটি সফট পাওয়ারের টুলস মাত্র।

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন