, ২০ জুন ২০২১; ১২:০১ পূর্বাহ্ণ


বিভি ডেস্ক: অর্থনীতিশাস্ত্র আজ যেরূপে বিরাজ করছে অতীতে তা ঠিক এমনটি ছিল না। রাজনীতির সাথে মিশেল করে অর্থনীতি পড়া হতো, বলা হতো রাজনৈতিক অর্থনীতি। অর্থনীতির ক্লাসিক্যাল বা ধ্রুপদী কালটির পুরোটাই ছিল রাজনৈতিক অর্থনীতির যুগ।

তাই, আজ অর্থনীতিবিদ বলতে যেভাবে নিরেট গণিতশাস্ত্র সহযোগে নিওক্লাসিক্যাল ধারার ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ করনেওয়ালা তাত্বিকদের বুঝে থাকি তা কিন্তু এর গোঁড়ার দিকে ছিল না। তখনকার অর্থনীতিবিদরা একাধারে রাজনৈতিক চিন্তক, সমাজবিজ্ঞানী ও দার্শনিক ছিলেন। বর্তমানেও অর্থনীতির গবেষণায় বিভিন্ন ডিসিপ্লিন অন্তর্ভূক্ত করা হচ্ছে যাতে গবেষণায় বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে বিভিন্ন বাস্তবতার সম্মিলন ঘটানো যায়।

অর্থনীতিবিদদের এই র‍্যাংকিং আমাদের একটি বৃহৎ প্রকল্পের অংশ যেখানে আমরা জ্ঞানের প্রায় সবগুলো শাখার রথী-মহারথীদের পাঠকদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে চাই। বলে রাখা ভালো যে যেকোন ডিসিপ্লিনের অথরিটি মাপার সর্বজনগ্রহণযোগ্য কোন পন্থা বের হয়নি। তবে কোন চিন্তক কিংবা গবেষকের চিন্তা অন্যরা কীভাবে এবং কতোটা ব্যপকভাবে ব্যবহার করছে এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।

সে প্রেক্ষাপটে গুগল স্কলারে প্রাপ্ত সাইটেশন চিন্তকের একাডেমিক শক্তিমত্তার একটা ধারণা দেয়। তাছাড়া গুগল সাইটেশন সর্বাধিক গ্রহণযোগ্য ও সর্বোচ্চ অন্তর্ভূক্তিমূলক। তাই আমরা গুগল সাইটেশনের আশ্রয় নিয়েই তালিকাগুলো করছি। তবে এটা সত্য যে এই পদ্ধতিতে অর্থনীতিবিদদের তালিকা করা সমালোচনার উর্ধেব নয়।

র‍্যাঙ্কিং পদ্ধতি:

এই লিস্ট তৈরি হয়েছে এমনভাবে যে, আমরা যাদের নামের সাথে প্রথম পরিচয় হিসেবে অর্থনীতির সম্পর্ক আছে তার গোটা সাইটেশনটাই ব্যবহার করেছি। এমনটা হওয়া অস্বাভাবিক নয় যে সংশ্লিষ্ট চিন্তকের অর্থনীতির কাজের চেয়ে বেশি সাইটেশন অন্য কয়েকটা জ্ঞানের শাখায় রয়েছে। সেক্ষেত্রে আমাদের যুক্তি হল, যে ডিসিপ্লিনেই তিনি সাইটেড হোন না কেনো অর্থনীতিশাস্ত্রই যেহেতু তার চিন্তার প্রধান ক্ষেত্র তাই তার অন্যান্য কাজেও তিনি অর্থনীতির জ্ঞানকে অল্পবিস্তর ব্যবহার করেছেন অথবা বলা যায় সংযুক্ত করেছেন। তার অন্যান্য শাখার জ্ঞানও প্রত্যক্ষভাবে অর্থনীতি দ্বারা প্রভাবিত, যেমন কার্ল মার্কস।

র‍্যাংকিং নিন্মরূপ- 

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন