বুধবার, ১৩ জানুয়ারি ২০২১; ১০:১০ পূর্বাহ্ণ


বিভি ডেস্ক: বাংলাদেশ রেলওয়ের অগ্রীম টিকেট বিক্রয় শেষ হয়েছে। বরাবরের মতোই এবারো প্রায় চল্লিশ শতাংশ(৩৮ দশমিক ৬৬ শতাংশ) টিকেটই বিক্রয় হয়েছে কোটায়। রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, ইদযাত্রায় রেলপথে অগ্রিম ১৫০০০০ টিকেট বিক্রি হয়েছে যার মধ্যে ৫৮ হাজার টিকেট বিক্রি হয়েছে কোটায় এবং এবং ৯২ হাজার টিকেট বেচা হয়েছে, বাকী জনগণের কাছে কোটা বহির্ভূত ভাবে।

এই সংবাদ আমাদের পড়তে হবে এভাবে যে, ৫৮ হাজার কোটাধারীদের কে কোন লাইনে দাঁড়াতে হয় নি, টিকেট তাদের ঠিকানায় চলে গিয়েছে। কিন্ত সাধারণ কোটায় দেশের ৯২ হাজার টিকেট সংগ্রহকারীকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়েছে। এই চল্লিশ পারসেন্ট পাবলিক এমিনিটি যে কোটাধারী এলিটরা কব্জা করেছে তারা কিন্তু রাষ্ট্রীয় আরো অনেক সুবিধাও এভাবেই গ্রহণ করছে। এদের সংখ্যা সর্বোচ্চ দশ লক্ষ। এবং দেশের বাকী ১৫ কোটি ৯০ লক্ষ জনগোষ্ঠীর জন্যে আছে, বাকী সকল ৬০% সুযোগ।

এই পারসেন্টেজটি দেশের অলমোস্ট সকল ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে। রেলের এই কোটা ব্যবস্থাটি কয়েক বছর ধরেই একটি নতুন তদবিরের রাজনীতির জন্ম দিচ্ছে। অনেক মন্ত্রীদের, পিএসের স্ত্রী, আম্মাদেরকে কাছে তদবির যাচ্ছে রেলের টিকেট পাবার আশায়।

কোটা ব্যবস্থার বিলুপ্তি নিয়ে ছাত্ররা আন্দোলন করেছিল যা আমাদের দেশের ইতিহাসে অত্যন্ত সফল একটি আন্দোলন। কিন্ত সেই আন্দোলন স্ফুলিঙ্গ মাত্র। আমাদের এমন দাবানল প্রয়োজন যেন আমরা এমন একটা রাষ্ট্র পাই যে রাষ্ট্রে, এই ১০ লক্ষ কোটাধারীরা ৪০% সুযোগ দখল করে রাখবেনা, দেশের ১৬ কোটি মানুষের জন্যে ১০০% সুযোগ উন্মুক্ত থাকবে।

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন