, ১ আগস্ট ২০২১; ১০:০৪ অপরাহ্ণ


—মুহাম্মদ রাশেদ খান

১. গতকাল(১৮ জুন) রাত ১১ টার দিকে আমাদের বোন নীলার বাসায় স্থানীয় সন্ত্রাসীরা হামলা করে গিয়েছিল। তারা প্রথমে পরিচয় দেয়, তারা পুলিশের লোক । তারা দরজা খুলতে বলে। কিন্তু, নীলার মা বলে, আপনারা সকালে আসেন, আমার বাড়িতে কোন পুরুষ লোক নেই। আমি এতো রাতে দরজা খুলতে পারবো না। তারপর তারা ১০ মিনিট যাবৎ দরজা ধাক্কাধাক্কি করে চলে যায়। তখন তারা অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও করে।

২. এরপর সেই একই সন্ত্রাসীরা সকাল ৭ টার দিকে নীলাদের বাড়িতে আসে। তারা প্রথমে নীলাকে ডেকে বলে, কি ব্যাপার, তুমি নাকি স্বাধীনতা বিরোধী আন্দোলনে যাও? 

নীলা, বলে এটা স্বাধীনতা বিরোধী আন্দোলন না। এটা কোটা সংস্কার আন্দোলন। তারপর তারা বলে, এসব আন্দোলন করা যাবেনা।

নীলা তখন, কোটা সম্পর্কে তাদেরকে বুঝিয়ে বলতে চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে তারা নীলাকে মারতে উঠে আসে। তখন নীলা ভয়ে কাঁপতে থাকে। ওই লোকগুলো নীলাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে।
তারা বলে, এসব আন্দোলন করলে এই গ্রাম ছাড়তে হবে, গ্রাম থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হবে। এই গ্রামে বসবাস করতে হলে কোন আন্দোলনে যেতে পারবা না।

৩. এসব চিৎকার চেঁচামেচি শুনে আশপাশের লোকজন চলে আসার কারণে তারা নীলাকে মারতে ব্যর্থ হয়। তারপরেও তারা নীলা ও তার পরিবারকে হুমকি দিয়ে গেছে। নীলা যদি আর আন্দোলনে যায়, তবে তারা তাদেরকে দেখে নিবে। গ্রাম ছাড়া করবে। তাদের কপালে খারাপি নেমে আসবে ইত্যাদি।
তাদের উদ্দেশ্য ছিল,নীলাকে আঘাত করা, কিন্তু লোকজন হাজির হওয়ার কারণে, তারা তা করতে পারেনা। তবে, তারা হুমকি দিয়ে গেছে তারা আবার আসবে।

পুলিশ নীলাকে আন্দোলনস্থল থেকে সরিয়ে নিচ্ছে।

৪. এটা কি মধ্যযুগীয় বর্বরতা নয়? একটা মেয়ে গ্রাজুয়েশন করছে। সেই মেয়েকে এভাবে হুমকি দেওয়াকে আপনি কিভাবে দেখবেন ? তার পরিবারকে ভয় দেখানো হয়েছে যে, মেয়েকে থামাও, নইলে সবগুলোর খবর আছে।
আর একজন মেয়েকে যদি এই হুমকি দেওয়া ও তার উপর হামলার চেষ্টা করা হয় স্বয়ং জাতির পিতার জন্মস্থান গোপালগঞ্জে তা হলে বিষয়টা কেমন দেখায়?

নীলা তো বঙ্গবন্ধুর চেতনা থেকেই আন্দোলনে এসেছিল। বঙ্গবন্ধু কি আন্দোলন সংগ্রামে মধ্যে দিয়েই তার জীবন অতিবাহিত করেনি? যে মহান মানুষটি বৈষম্যের বিরুদ্ধে কথা বলার কারণে তাঁর যৌবনকাল কারাগারে কাটালেন, সেই একই এলাকার মেয়ে নীলা আন্দোলন করতে পারবে না, বৈষম্যের বিরুদ্ধে কথা বলতে পারবে না? এটা কি মুজিব চেতনা, এটা কি জাতির পিতার শিক্ষা?

৫. ঘটনা এখানেই শেষ নয়। তারা ঈদের আগের দিন এক ঘৃণ্য ও ভয়ানক কাজ করেছে। তারা নীলাদেরকে ভয় দেখাতে তাদের বাসার জানালা দিয়ে নীলার বিছানার উপর ২ টা মৃত “সাপ” রেখে গিয়েছিল। এই ঘটনাকে আপনি কি হিসেবে আখ্যায়িত করবেন?

৬. নীলার আব্বা কলেজের শিক্ষিক ছিলেন। ৫ বছর হলো নীলার আব্বা মারা গেছেন। পরিবারে এখন তিনজন সদস্য। নীলারা ২ বোন। ছোটবোন কলেজে পড়ে। নীলা তো ঢাকায় পড়াশোনা করে। ওর এখন বড় দুশ্চিন্তা ছোটবোন ও মাকে নিয়ে। সন্ত্রাসীরা তো হুমকি দিয়ে গেছে। সে ভয় পাচ্ছে যে, বাড়ি থেকে ঢাকায় আসার পরে, যদি কলেজে যাওয়ার পথে নীলার ছোটবোনকে ওরা তুলে নিয়ে যায়, যদি মা ও বোনকে রাতে হত্যা করে রেখে যায়…..তখন কি হবে!!

৭. নীলা, আমাকে জানালো, সে জিডি করতে চায়। কিন্তু আন্দোলনকারী মেয়ের জিডি কি পুলিশ প্রশাসন নিবে?
যেখানে রাশেদ, নুর, ফারুকে গুমের চেষ্টা চালানো হয়, যেখানে রাশেদ, নুরকে প্রকাশ্যে হত্যা হুমকির প্রমাণ থাকার পরেও নিরাপত্তা দেওয়া হয়না, জিডি নেওয়া হয় না, সেখানে নীলার পরিবারকে কি তারা নিরাপত্তা দিবে?

 

মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন, যুগ্ম আহ্বায়ক, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

সম্পর্কিত লেখা


আরও পড়ুন